অনাবৃষ্টির কারণে আমনের বীজতলা তৈরি করতে পারছেন না কৃষক

183

আলোকিত সকাল ডেস্ক

শরণখোলা :বৃষ্টির আশায় পানিশূন্য মাঠে পাওয়ার টিলার দিয়ে জমি চাষের দৃশ্য। ছবিটি গতকাল উপজেলার মঠেরপাড় গ্রাম থেকে তোলা —ইত্তেফাক

শরণখোলায় চাষাবাদের ভরা মৌসুম হলেও অনাবৃষ্টির কারণে আমনের বীজতলা তৈরি করতে পারছেন না কৃষক। সময়মতো বৃষ্টি না হওয়ায় উপজেলায় আউশের উত্পাদন অর্ধেকে নেমে যাবে। তাই চাষাবাদ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষকরা।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে কৃষকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, মধ্য আষাঢ়েও কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় ফসলের মাঠ পানিশূন্য অবস্থায় থাকায় কৃষকরা উফশী জাতের আমন ও ইরি ধানের বীজতলা তৈরিতে জমি চাষ করতে পারছেন না। এ সময় ধানের চারা উত্পাদন করতে না পারলে আসন্ন আমন ধান উত্পাদন দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মঠের পাড় গ্রামের কৃষক বাদশা আকন জানান। তিনি বলেন, বর্তমানে অল্প ছিটেফোঁটা বৃষ্টিপাত হলেও তাতে মাটি ভেজে না, জমিতে লাঙল দেওয়া যায় না। উপজেলার সর্বত্র ফসলের মাঠের চিত্র একই রকমের বলে জানালেন রাজৈর গ্রামের কৃষক রুহুল আমীন হাওলাদার।

কৃষক সাইদুর রহমান মুন্সি জানান, এবার আউশ ধান তেমন হবে না। সময়মতো বৃষ্টিপাত না হওয়ায় কৃষকরা আউশের চাষ করতে পারেননি। গত বছরের এই সময়ে মাঠে আউশের ব্যাপক চাষ হয়েছিল বলে তিনি জানান।

শরণখোলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৌমিত্র সরকার জানান, শরণখোলায় এ বছর আউশের উত্পাদন কম হবে। এ উপজেলায় প্রতিবছর ৮০০ হেক্টর জমিতে আউশের চাষ করা হয়। কিন্তু অনাবৃষ্টির কারণে এবার উপজেলায় প্রায় ৫০০ হেক্টর জমিতে আউশের চাষ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সামনের দিনগুলোতে বৃষ্টিপাত হলে আমন উত্পাদনে তেমন ক্ষতি হবে না।

আস/এসআইসু

Facebook Comments