অবশেষে বাড়ি ফিরল ভ্যালেরিয়া

197

আলোকিত সকাল ডেস্ক

অবশেষে দেশে ফিরেছে মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সময় নদীর স্রোতে ভেসে প্রাণ হারানো দুই বছর বয়সী অ্যাঞ্জি ভ্যালেরিয়ার মরদেহ। সোমবার (১ জুলাই) স্থানীয় সময় সকালে বাবা অস্কার মার্টিনেজ (২৫) ও ভ্যালেরিয়ার নিথর দেহ মেক্সিকো থেকে সরাসরি গুয়েতেমালা হয়ে এল সালভাদরের লা হাচাদুরা শহরে এসে পৌঁছায়।

সামান্য একটু ভালো জীবনের আশায় গত রবিবার (২৩ জুন) নিজের স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে মেক্সিকো থেকে পালিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমাতে চেয়েছিলেন মার্টিনেজ। তবে নদী অতিক্রমের সময় মাঝ পথেই নিজের মেয়ে শিশুকে নিয়ে আচমকা পানিতে পড়ে যান তিনি। চোখের সামনেই স্বামী-সন্তানকে স্রোতে ভেসে যেতে দেখলেও কিছুই করতে পারেননি স্ত্রী তানিয়া ভেনেসা। মূলত এ ঘটনার পর একাই দেশে ফিরতে বাধ্য হন মার্টিনেজের স্ত্রী।

যদিও পরবর্তীতে পানিতে ভেসে থাকা অবস্থায় মৃত মার্টিনেজ এবং তার শিশুকন্যার হৃদয়বিদারক দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তা দাগ কাটে সবার মনে। ছবিতে উপুড় হয়ে বাবার গলা জড়িয়ে রাখা ছোট্ট অ্যাঞ্জি ভ্যালেরিয়াকে দেখে কেঁদেছেন অনেকে।

মূলত এ ঘটনার পরপরই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং মেক্সিকো সীমান্তে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ এবং শরণার্থীদের প্রতি তার শক্ত অবস্থানকেই দায়ী করছেন বেশিরভাগ বিশ্লেষক। অপরদিকে স্বামী আর মেয়ের মরদেহ ফিরে পাওয়ার আসায় এক রকম উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাতে থাকে তানিয়া ভেনেসার। প্রিয়জনদের নিজের চোখের সামনে ভেসে যেতে দেখেও নিশ্চুপ থাকতে হয়েছে তাকে। অবশেষে প্রায় সপ্তাহ খানেক পর এই দুইজনের মরদেহ ফিরে পেলেন তিনি। যদিও প্রাণহীন দুটি দেহ, তবুও শেষবার যে দেখা পাবেন এতদিন সেটাও তো প্রায় অনিশ্চিতর মধ্যেই ছিল।

আস/এসআইসু

Facebook Comments