ইভাঙ্কা: নামে ফার্স্ট ডটার হাবভাবে কূটনীতিক

233

আলোকিত সকাল ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জাপান ও কোরিয়া সফরে নতুন রূপে সবার নজরে এসেছেন তার মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্প। নামে ফার্স্ট ডটার হলেও হাবভাব ছিল পুরোদস্তুর কূটনীতিকদের মতোই।

চারদিনের এ সফরে প্রেসিডেন্টে বাবার পাশাপাশি থেকেছেন সর্বদাই। ফার্স্টলেডিদের সঙ্গে সেরেছেন গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক। বিশ্বনেতাদের ভিড়ে দাঁড়িয়ে বা মধ্যাহ্নভোজ-নৈশভোজে দ্বিপাক্ষিক বা ত্রিদেশীয় আলাপও করেছেন তিনি।

জাপানের ওসাকায় জি-২০ সম্মেলনের বিশ্ব মঞ্চে ক্যামেরার চোখ এড়ায়নি ইভাঙ্কার এসব কূটনৈতিক চালচলন।

সিএনএন জানায়, এশিয়া সফরে অপ্রত্যাশিত কূটনীতিক ভূমিকা পালন করেছেন ইভাঙ্কা। দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন, তার স্ত্রী কিম জং সুক এবং ট্রাম্পের মাঝেই ছিলেন তার মেয়ে ও জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা ইভাঙ্কা।
দক্ষিণ কোরিয়ার ফার্স্টলেডি ও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও’র মাঝে আসল নেত্রীর ভূমিকায় লাল গালিচা মাড়িয়েছেন তিনি। তার এ কূটনীতিক স্টাইল বিশ্ব গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রকাশ পেয়েছে।

সম্প্রতি ইউরোপ ও জাপানের টোকিও সফরে ট্রাম্পের সফরসঙ্গী ছিলেন মেলানিয়া। কিন্তু ওসাকার জি-২০ সম্মেলন ও দক্ষিণ কোরিয়া সফরে যাননি তিনি। এই সুযোগে মার্কিন প্রতিনিধি ও প্রেসিডেন্ট পরিবারের সদস্য হিসেবে কূটনীতির নজিরবিহীন ভূমিকা পালন করেছেন ইভাঙ্কা।

ওসাকায় কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছেন তিনি। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এবং নেদারল্যান্ডসের রানী ম্যাক্সিমার সঙ্গে ‘নারীদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন’ শীর্ষক ফোরামে ভাষণ দেন প্রেসিডেন্ট কন্যা।

ফরাসি সরকার প্রকাশিত একটি ছবিতে দেখা গেছে, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাত্রেঁদ্ধা, আইএমএফ চেয়ারম্যান ক্রিস্টিন লাগার্দে ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে’র সঙ্গে আলাপ করছেন ইভাঙ্কা। হোয়াইট হাউস প্রকাশিত ছবিগুলোতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং আবের সঙ্গে ট্রাম্পের পৃথক একান্ত বৈঠকে দেখা গেছে হাস্যোজ্জ্বল ইভাঙ্কাকে।

বাবা যখন কোরীয় সীমান্তে গিয়ে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করছিলেন, মেয়ে তখন দক্ষিণের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যাং কুয়াং-ওয়ার সঙ্গে ‘বিশ্ব অর্থনীতিতে নারীরা’ শীর্ষক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছিলেন।

পরে কুয়াংয়ের সঙ্গে কোরীয় সীমান্তের বেসামরিক এলাকা পরিদর্শন করেন ইভাঙ্কা। মেয়েকে কূটনীতির মঞ্চে ওঠাতে ভূমিকা ছিল ট্রাম্পেরও। রোববার কোরিয়া সফর শেষে বিদায়ী ভাষণের সময় ইভাঙ্কা ও পম্পেওকে নিয়ে রসিকতা করতে ছাড়েননি তিনি।

এদিন দক্ষিণের পিয়োংটাকে ওসান বিমানঘাঁটিতে ভাষণ দিচ্ছিলেন ট্রাম্প। এ সময় তিনি বলেন, ‘সবাই খুশি, উত্তর কোরিয়ার অনেকেরই আজ চোখে ছিল আনন্দাশ্রু।

আমাদের একটি সেরা টিম রয়েছে যারা জানেন কি করে এটি করতে হয়। এখানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও রয়েছেন। মঞ্চে আসুন। ইভাঙ্কাকেও মঞ্চে আসতে বলছি।’ এ সময় ইভাঙ্কা ও পম্পেও দু’জনে পাশাপাশি হাত ধরাধরি করে মঞ্চের দিকে এগিয়ে আসতে থাকেন।

দু’জনকে দেখিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘কি অসাধারণ জুটি, ঠিক যেন বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট।’ ট্রাম্পের রসিকতায় দর্শক সারির সবাই হেসে ওঠেন। বাবার এ ঠাট্টায় খলখলিয়ে হেসে ওঠেন ইভাঙ্কা। পম্পেওর মুখেও ছিল লজ্জামাখা হাসি।

আস/এসআইসু

Facebook Comments