ক্লাসে প্রথম হওয়ায় ছাত্রীকে দুবছর ধরে ৫ জনের ধর্ষণ!

715

আলোকিত সকাল ডেস্ক

খাবারে মাদক মিশিয়ে অচেতন করে এক স্কুলছাত্রীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তার চার তুতো ভাই ও এক স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এমনকি ধর্ষণের পর সেই দৃশ্য ভিডিও করেও রাখত তারা। পড়াশোনায় ভালো হওয়ার কারণেই তাকে খাটো করতে এমনটি করা হয়েছে বলে ধারণা করছেন পুলিশ।

গত শুক্রবার মেয়েটির পরিবারের হোয়াটস অ্যাপে সেই ভিডিও আপ করার পর তা প্রকাশ্যে আসে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত দুবছর ধরে উত্তর প্রদেশের সীতাপুরের মাহোলির সরকারি স্কুলে এভাবেই বারবার ধর্ষণ করা হয়েছে ওই স্কুলছাত্রীকে। তবে ভুক্তভোগী ও অভিযুক্তরা সবাই যৌথ পরিবারেই থাকতো।

এ ঘটনায় শনিবার পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রীর মা-বাবা। তবে এখনো এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

এ বিষয়ে পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘নাবালিকা মেয়েটিকে মাদক খাইয়ে অচেতন করে চার নাবালক ও ওই শিক্ষক তাকে ধর্ষণ করতো। ওই স্কুলছাত্রীর জ্ঞান ফিরে এলে তাকে বলা হতো, সে মাঠে অজ্ঞান হয়ে পড়ায় তাকে স্টাফ রুমে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে হোয়াটস অ্যাপে পোস্ট করা ওই ভিডিও দেখার পর সে পুরো বিষয়টি বুঝতে পারে। ‘

পুলিশের ধারণা, ক্লাসে প্রথম হওয়া কিশোরীর প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকে খাটো করতে তুতো ভাইয়েরা দিনের পর দিন তাকে ধর্ষণ করেছে। তারা টিফিনের সময় বোনকে বলতো একসঙ্গে খাওয়ার জন্য। সেই সময়ই তারা বোনের খাবারে মাদক মিশিয়ে দিতো।

আস/এসআইসু

Facebook Comments