খালেদা জিয়ার মুক্তির দুটি পথ

353

আলোকিত সকাল ডেস্ক

দূর্নীতির মামলায় জেলে থাকা বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া কীভাবে মুক্তি পেতে পারেন- এর দুটি পথ রয়েছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। বুধবার (১৭ জুলাই) রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি বলেন, আন্দোলন করে তাদের নেত্রীকে (খালেদা জিয়া) মুক্তি করবেন, সেই জন্য তারা তাদের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানাচ্ছেন। আমরা বারবার বলেছি, খালেদা জিয়া দুর্নীতির মামলায় কারাগারে। তার মুক্তির একটি পথ- আইনি প্রক্রিয়া। আরেকটি পথ আছে- মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে যদি তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এর বাইরে আর কোনো পথ খোলা নেই।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘কারাবন্দি দিবস’ উপলক্ষে এই সভার আয়োজন করে ‘স্বপ্ন ফাউন্ডেশন’ নামের একটি সংগঠন।

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে বিএনপি যে আন্দোলনের কথা বলছে সেই বিষয়টি তুলে হানিফ বলেন, ‘আন্দোলন সংগ্রামের হুমকি আওয়ামী লীগকে দিয়ে লাভ নেই। আওয়ামী লীগের জন্মই হয়েছে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে আন্দোলন করে। সেই দলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের হুমকি হাস্যকর।

বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রাকে থামিয়ে দিতে ওয়ান ইলেভেনে শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল- উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ২০০৮ সালে বিপুল ম্যান্ডেট নিয়ে তিনি ক্ষমতায় এলেন। এই মান্ডেটের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে, জনগণের আস্থা কোথায় ছিল। শেখ হাসিানাকে গ্রেপ্তার করা চরম অন্যায় ছিল, ভুল সিদ্ধান্ত ছিল, ষড়যন্ত্রের অংশ ছিল।’

শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তারের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিচারের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, তদন্তের মাধ্যমে এই সব অপরাধীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে, ভবিষ্যতে যেন এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

সংগঠনের সভাপতি রিয়াজউদ্দিন রিয়াজের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা খন্দকার বজলুল হক, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব শাবান মাহমুদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী প্রমুখ।

আস/এসআইসু

Facebook Comments