ছাত্রীকে ধর্ষণ, প্রেমিক হাতেনাতে ধরা

240

আলোকিত সকাল ডেস্ক

জামালপুরের মেলান্দহে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৯ বছর বয়সী এক ছাত্রী। বিয়ের প্রলোভনে ছাত্রীটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে নবীনুর নামে এক বখাটে যুবক।

এ ঘটনায় মেলান্দহ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষা হয়েছে।

ধর্ষিতা মেয়েটি মেলান্দহের একটি স্কুল থেকে থেকে এ বছর এসএসসি পাশ করেছে।

মামলার বিবরণ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, ৬ মাস আগে ওই ছাত্রীর সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলে উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নের তারাকান্দি গ্রামের আব্দুল বারীর ছেলে নবীনুর। সম্পর্কের এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে আসছিল। ছাত্রীটি বিয়ের জন্য চাপ দিলে তালবাহানা শুরু করে নবীনুর।

গত ১জুলাই রাত সাড়ে ৮টার দিকে নবীনুর ভালুকা গ্রামে মেয়েটির বাড়িতে এসে ফের তাকে ধর্ষণ করে। এসময় ধর্ষিতার ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে নুর নবীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। ওই দিন রাতেই ধর্ষিতার বাবা মেলান্দহ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মেলান্দহ থানার ওসি মো. রেজাউল ইসলাম খান ধর্ষণ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নুর নবীকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হলে তাকে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments