জুনে বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া

26

দেশবার্তা ডেক্সঃ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর শুরু হয়েছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া, ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলংকা-নিউজিল্যান্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে সিরিজ ফেলেছে। দক্ষিণ আফ্রিকাও এ মাসেই ম্যাচ খেলবে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে বাংলাদেশকে অপেক্ষা করতে হবে আরও প্রায় দেড় মাস। চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হওয়ার বড় দলের বিপক্ষে সূচি অনুযায়ী বাংলাদেশ নিয়মিত টেস্ট খেলতে পারবে বলেই মনে হয়েছিল। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া আগামী ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরে আসবে না বলে জানায়। তবে সফরটা ২০২০ সালের জুনে হবে বলে মঙ্গলবার নিশ্চিত করা হয়েছে।

ফেব্রুয়ারিত দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার। তবে সেটা জুন-জুলাইয়ে সরিয়ে নেওয়ায় খুশি বলে জানিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। জুনের ওই সফর থেকে দু’দলই লাভবান হবে বলেও উল্লেখ করেছে তারা। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশনসের প্রধান পিটার রোচ বলেন, ‘আমরা ২০২০ সালের জুনে বাংলাদেশ সফরে আসবো ভেবে খুবই উচ্ছ্বসিত। এটা দারুণ এক সিরিজ হবে। আমরা দুই দেশের বোর্ড মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, সিরিজটা পরে হলে দুই দেশই লাভবান হবে।’

সূচি অনুযায়ী, বাংলাদেশের বিপক্ষে ওই সিরিজের আগে কোন টেস্ট সিরিজ খেলবে না অজিরা। জানুয়ারিতে তারা ভারত সফরে আসবে ওয়ানডে খেলতে। ফেব্রুয়ারি-মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ আছে তাদের। এরপর জুনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলেই বাংলাদেশ সফরে আসবে তারা। এছাড়া সূচিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ আছে অ্যারণ ফিঞ্চের দলের। তবে আইসিসি জিম্বাবুয়েকে নির্বাসিত করায় সিরিজটা বাতিল করার সুযোগ পেয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়া।

দুই বছর আগে বাংলাদেশের মাটিতে দুই টেস্টের সিরিজ খেলে অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ ঢাকা টেস্টে জয় তুলে নিয়ে এগিয়ে যায়। এরপর অস্ট্রেলিয়া চট্টগ্রাম টেস্টে জিতে সিরিজ বাঁচায়। ওই সিরিজে স্পিন বড় ভূমিকা রাখে। ওই সিরিজের পরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বাংলাদেশের টেস্ট খেলার কথা ছিল। কিন্তু অজি ক্রিকেট বোর্ড সেই সিরিজ আয়োজন করেনি। পরে বাংলাদেশ দলকে স্বাগত জানানো হবে বললেও ডাকা হয়নি সাকিবদের। টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর ২০০৩ সালে বাংলাদেশকে টেস্ট সিরিজের আমন্ত্রণ জানায় অস্ট্রেলিয়া। সাকিব, তামিম, মুশফিকরা তখনও বাংলাদেশ দলের আসেননি। দেশ সেরা ক্রিকেটারদের তাই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা হয়নি আজও।

Facebook Comments