দেশের ফুটবলে কি সুদিন ফিরছে?

194

আলোকিত সকাল ডেস্ক

সম্প্রতি সময়ে দেশের ফুটবল যেন হঠাৎ করেই জ্বলে উঠেছে তারার মতো করে, এ যেন মেঘলা আকশে রোঁদের দেখা। ক্রিকেটের মতোই ফুটবলে সুদিন ফিরছে। কিছু দিন আগেও বিশ্বকাপের প্রাক-বাছাইপর্বের প্রথম লেগে লাওসের মাটিতেই তাদের বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পায় বাংলাদেশ। এরপর বিশ্বকাপের প্রাক-বাছাইপর্বের দ্বিতীয় লেগে ঘরের নাঠে লাওসের বিপক্ষে শূন্য গোলে ড্র করে বিশ্বকাপের মূল বাইছাই পর্বের টিকেট পান লাল-সবুজের জার্সিরা।

এরপর প্রথম বারের মতো ১৯৯৭-৯৮ সালের পর আন্তর্জাতিক কোনও টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় পর্বে জায়গা করে নিলো আবাহনী লিমিটেড। ভারতের মিনারবা পাঞ্জাবকে ১-০ গোলে হারিয়ে এএফসি কাপের দ্বিতীয় পর্বে আবাহনী লিমিটেড। তাই বলাই চলে দেশের ফুটবলে সুদিন এখন অপেক্ষা মাত্র।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশী ফুটবল দল ও শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের স্ট্রাইকার মোহাম্মদ জাহিদ হাসান এমিলি বিডি২৪লাইভকে বলেন, ‘একটা বিষয় খেয়াল করবেন সব দিক থেকেই বাংলাদেশের ফুটবল ভালো করছে। বাংলাদেশ জতীয় দল কাতার বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব খেলবে আবার এএফসি কাপে আবাহনী লিমিটেডের দারুন জয়। এই জিনিসটার ধারাবাহিকতায় থাকতে হবে। কিন্তু এই জায়গাটায় হয় কি আমারা এর আগেও অনেক জায়গায় ভালো করেছি কিন্তু সেটা ধরে রাখতে পারেনি সেই আগের জায়গায় চলে এসেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সামনে যেহেতু বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের খেলা আছে অবশ্যই অনেক শক্তিশালী দলের বিপক্ষে খেলা পরবে। তাই সেভাবেই আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে যাতে ভালো করতে পারি। আবার আবাহনী লিমিটেডও এএফসি কাপে কোরিয়ার বিপক্ষে খেলা সেখানেও তারা যাতে ভালো করতে পারে। আসলে সর্বশেষ একটা কথা বলতে চাই যেহেতু আমাদের ফুটবলে ভালো একটা দিক চলে এসেছে এটা ধরে রাখাটাই মূল বিষয়।’

তবে দেশের ফুটবলের সুদিন ফিরছে বলে মানতে নারাজ বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল ও আবাহনী ক্রীড়া চক্রের হয়ে স্ট্রাইকার পজিশনে খেলা শেখ মোহাম্মদ আসলাম। আশির দশকের এই স্ট্রাইকার ছিলেন ত্রাস সৃষ্টিকারী গোলদাতা।

তিনি বিডি২৪লাইভকে বলেন, ‘ফুটবল যদি ভালো করে তাহলে সবারই ভালো লাগবে। তখন দেখবেন সারা দেশের মানুষ ফুটবল নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাবে। কিন্তু আশির দশকের ফুটবল আর ২০০০ সালের ফুটবল মধ্যে অনেক গ্যাপ আছে। তৎকালীন সময় খেলা দেখার সময় মাঠ ভরা দর্শক থাকতো কিন্তু এখনের ফুটবলের সাথে অনেক গ্যাপ। আর সবচেয়ে বড় বেপার হলো সাফে কিন্তু আমরা অনেক পিছিয়ে আছি। বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব খেলা মানেই সব কিছু না। আমাদের আগে টার্গেট থাকবে সাফ চ্যাম্পিয়ান হওয়া তারপর বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব খেলা। এই জায়গাগুলো থেকে যদি তুলনা করি তাহলে আমাদের সেই লক্ষ্যে পৌঁছাতে অনেক বাকি আছে।’

সাবেক এই ফুটবলার আরও বলেন, ‘ক্লাব পর্যায়ে আবাহনী লিমিটেড সব সময় ভালো করে আসছে। আমাদের সময়েও ভালো করেছে। এখন আরও বেশী ভালো করছে। আর আবাহনী লিমিটেড ভালো কোন ফলাফল আনলে আমি নিজের কাছে নিজেকে গর্ববোধ করি। কারণ একসময় আবাহনী লিমিটেডকে প্রতিনিধিত্ব করেছি।’

আস/এসআইসু

Facebook Comments