ধামইরহাটে ফেইসবুকের মাধ্যমে চিকিৎসার আর্থিক সহায়তা পেলেনএক মাদ্রাসা ছাত্র

339

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি

বর্তমান বহুল আলোচিত যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে সোসাল মিডিয়িার (ফেইসবুক) নামক সাইটটি কে আমরা সবাই এক নামে চিনি। আর এই ফেইসবুক কে কেন্দ্র করে নানান রকম ঝামেলার কথা ও আমাদের কারো কাছে অপরিচিত কিছুই না। এমন ধারনা কে সম্পূর্ণ ভাবে পাল্টাতে নওগাঁর ধামইরহাটে আঞ্চলিক ভাষায় ফেসবুকে ‘হামরা ধামরের ছল’ নামক একটি সেচ্ছাসেবী গ্রুপ তৈরী হয়। যেটি সমাজের অবহেলীত সুবিধা বঞ্চিত, অসুস্থ মানুষের পাশে দাড়িয়ে আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে বেশ আলোড়ন তৈরী করেন।

জানা গেছে, উপজেলার ধামইরহাট সিদ্দিকীয়া ফাজিল মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণীর ছাত্র মো. মেহেদী হাসান (১৩) জয়জয়পুর গ্রামের জিয়ারুল ইসলামের ছেলে দির্ঘ্য দিন পাকস্থলীতে পাথর জনীত রোগে অসুস্থ ছিলেন। পারিবারিক সচ্ছলতা না থাকায় একমাত্র ছেলে মেহেদী হাসান কে নিয়ে বিপাকে পরেন অভাগা, মানুষের বাড়িতে খেটে খাওয়া পিতা জিয়ারুল ইসলাম। নিজের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে যতটুকু সম্বল ছিল তা দিয়ে একমাত্র সন্তানের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানোর পরে ও অপারেশানের টাকা যোগাড় করা সম্ভব হয়নি তার। এমন্তবস্থায় এলাকাবাসীসহ সেচ্ছাসেবী স্থানীয় সচেতন মহল ফেইসবুকে বাচ্চাটার চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা কামনা করেন।

“হামরা ধামরের ছল” গ্রুপ এডমিন মেহেদী হাসান জানান, আমাদের দেখাবো আলোর পথ নামক একটি সামাজিক সংগঠন রয়েছে যেটা সবসময় অসহায়,দুস্থ, প্রতিবন্ধী মানুষদের জন্য কাজ করে থাকেন। কিন্তু আমার এবারের চেষ্টা একটু অন্যরকম ছিল। তিনি আরো জানান, অসুস্থ মেহেদী টাকার অভাবে চিকিৎসা না করেত পারায় আমাদের ফেইসবুক মাধ্যমে সবার কাছে আর্থিক সহায়তা কামনা করে একটি পোস্ট দেই এবং মাত্র কয়েকদিনে বিভিন্ন এলাকা থেকে বিকাশের মাধ্যমে আমাদের কাছে টাকা আসতে থাকে। এবং গতকাল রাতে মেহেদী হাসানের পিতা জিয়ারুল ইসলামকে নগদ ২৩ হাজার ২শত টাকা প্রদান করি।

এবিষয়ে মেহেদীর পিতা জিয়ারুল ইসলাম জানান, আমি একজন সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ আমার একার পক্ষে এতগুলো টাকা যোগাড় করে আমার ছেলের চিকিৎসা করা আমার পক্ষে কখনো সম্ভব ছিলনা। সবার সহযোগিতার মাধ্যমে আমার ছেলের অপারেশান ভালো ভাবে সম্পূণ্য হয়েছে এবং এখন সে অনেকটা ভালো ও সুস্থ আছে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments