নৃশংসতা ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে

157

আলোকিত সকাল ডেস্ক

নৃশংসতা-বর্বরতা ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে। তুচ্ছ কারণে রক্তপাত-খুনোখুনির ঘটনা ঘটছে। এসব ঘটনা এমনই বীভৎস-নৃশংস যে শুনেই অনেকে আঁতকে উঠছে। নিষ্পাপ শিশুকে হত্যা করে গলা থেকে বিচ্ছিন্ন করা মাথা নিয়ে বাজারে ঘুরে বেড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। ঘুমন্ত স্ত্রীর গলা ও হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যার পর স্বামী নিজেই থানায় হাজির হয়েছে। বর্বরতার মাত্রা এমনই যে, হত্যার পর লাশ টুকরো টুকরো করে ময়লার স্তূপে ফেলে দেওয়া হয়েছে। তুচ্ছ কারণে কিশোর বন্ধুরা আরেক বন্ধুকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে। শুক্রবার গোপালগঞ্জে এক যুবককে পানিতে চুবিয়ে, পরে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এমন আরও অনেক ঘটনা সাম্প্রতিককালে ঘটেছে। অপরাধপ্রবণ একশ্রেণির মানুষ কোনো কিছুকেই তোয়াক্কা করছে না। মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব হয়ে প্রতিনিয়তই বনের হিংস্র পশুকেও হার মানাচ্ছে।

হঠাৎ নৃশংসতার এমন ভয়ানক বিস্তার ঘটায় উদ্বিগ্ন সমাজের সচেতন মানুষরা। সমাজ বিশ্লেষকরা বলছেন, সামাজিক মূল্যবোধের অভাব ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার অভাবে এ ধরনের অপরাধ বেড়ে যাচ্ছে। এ ছাড়া বিদেশি অপসংস্কৃতির ভয়ানক প্রভাবেও অনেকে প্রভাবিত হচ্ছে। বিশেষ করে কিশোর অপরাধীরা এসব অপরাধে বেশি জড়িয়ে পড়ছে।
পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া) মো. সোহেল রানা সময়ের আলোকে জানান, প্রতিটি ঘটনা ঘটলেই পুলিশ গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করছে। জড়িতদের গ্রেফতারও করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক আলোচিত ঘটনাগুলো দেখলেও সেটি বোঝা যায়। এসব ঘটনার নেপথ্যের কারণ, হত্যাকান্ড কেন ঘটছে সব বিষয়েই পুলিশ কাজ করছে।

পুলিশ সদর দফতরের ‘স্পেশাল ক্রাইম’ শাখা এসব আলোচিত বা চাঞ্চল্যকর হত্যার মামলাসহ সার্বিক বিষয় মনিটরিং করছে। র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. এমরানুল হাসান সময়ের আলোকে জানান, বর্তমানে কিশোর গ্যাংদের মাধ্যমে ভয়ানক কিছু ঘটনা ঘটছে। এ ব্যাপারে র‌্যাব কিশোর গ্যাংদের ধরতে অভিযান পরিচালনাসহ বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক তৌহিদুল হক সময়ের আলোকে জানান, এ ধরনের অপরাধ বাড়ার কারণগুলো সমাজের ভেতর থেকেই। নৃশংস ঘটনাগুলোর মধ্যে যে ঘটনাটি কেবল রাষ্ট্রের শীর্ষ কর্তাব্যক্তির দৃষ্টিতে যায় তখনই কেবল বিচার হচ্ছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে যথাযথ বিচার না হওয়ায় অপরাধপ্রবণরা বেপরোয়া হয়ে উঠছে। স্থানীয় পর্যায়ে অতি রাজনৈতিক প্রভাবে উঠতি বয়সিরা ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের বা প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় থেকে নানা অপকর্ম করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, একটি সমাজে কীভাবে অপরাধ ঘটছে সেটি মূল্যায়ন করে সমস্যার সমাধান করা যায়। এ ধরনের সমস্যার উত্তরণে সামাজিক মূল্যবোধ সৃষ্টি করতে হবে। আত্মরক্ষা বা আত্মসম্মানের অজুহাতে দূরে না থেকে এসব ঘটনায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সম্মানবোধ সৃষ্টি করতে হবে। স্কুল-কলেজপড়ূয়া শিক্ষার্থীদের রাজনীতির সংস্পর্শ থেকে দূরে রাখতে হবে।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার রাতেও রাজশাহীর পবায় ঘুমন্ত স্ত্রীকে গলা ও হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যার পর থানায় গিয়ে নিজেই ধরা দিয়েছে রিন্টু আহমেদ ওরফে শরিফুল নামে এক ব্যক্তি। চট্টগ্রামে বৃহস্পতিবার রাতে কথাকাটাকাটির জেরে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য মোবারক হোসেনকে পিটিয়ে হত্যা করে তারই বন্ধু এবং ওই গ্রুপের সদস্যরা। তার আগে বৃহস্পতিবার নেত্রকোনা শহরে সজীব (৭) নামে এক শিশুকে গলা কেটে হত্যার পর বিচ্ছিন্ন মাথা নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিল রবিন (২৮) নামে এক যুবক। পরে ওই যুবককেও এলাকাবাসী পিটিয়ে হত্যা করে। গতকাল গোপালগঞ্জে জসিম শেখ নামে এক যুবককে পানিতে চুবিয়ে, পরে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার তিন দিন আগে আমিনবাজারে একটি ময়লার স্তূপ থেকে এক নারীর ছয় টুকরো লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার আগে কুমিল্লায় এজলাসের ভেতরে বিচারকের সামনেই এক আসামি আরেক আসামিকে খুন করে। কুমিল্লায় পারিবারিক বিরোধের জেরে কুপিয়ে এক পরিবারের তিনজনকে হত্যা করা হয়। তার আগে গত ২৮ জুন সকালে বরগুনা কলেজের সামনে স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সামনেই অনেক লোকের উপস্থিতিতে প্রকাশ্যে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে রিফাত শরীফ নামে এক যুবককে। এ সময় স্বামীর প্রাণ বাঁচাতে গগনবিদারী চিৎকার করে খুনিদের বারবার নিবৃত করার চেষ্টা করছিল স্ত্রী মিন্নি। একই রাতে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় নিজ বাড়িতে মা-ছেলেকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামী থানায় : রাজশাহীর পবায় ঘুমন্ত স্ত্রী লাভলী বেগমকে (২৮) হত্যার পর থানায় হাজির হয়েছে স্বামী। তার নাম রিন্টু আহমেদ ওরফে শরিফুল (৩৫)। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর দামকুড়া থানায় হাজির হয় রিন্টু। রিন্টু দামকুড়া থানাধীন কলারটিকর এলাকার আবুল কাশেম ওরফে খোকার ছেলে।

পুলিশ জানিয়েছে, রাত ২টার দিকে ঘুমন্ত স্ত্রী লাভলী বেগমের (২৮) মাথায় আঘাত করে রিন্টু। পরে গলা ও দু’পায়ের রগ কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়। শোবার ঘরে স্ত্রীর মৃতদেহ রেখে ওই রাতেই প্রায় ছয় কিলোমিটার দূরের থানায় আসে রিন্টু। দুই সন্তানের জননী লাভলী বেগম পরকীয়ায় জড়িয়েছে এমন অভিযোগে স্বামী এই হত্যাকান্ড ঘটায় বলে পুলিশকে জানিয়েছে। নিহত লাভলী পবার সাইরপুুকুর এলাকার বাবলু মিয়ার মেয়ে। রাতেই রিন্টুকে গ্রেফতারের পর পুলিশ তার বাড়ি থেকে লাভলীর মৃতদেহ উদ্ধার করে।

দামকুড়া থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, পেশায় নির্মাণ শ্রমিক রিন্টু। কাজের জন্য প্রায়ই তাকে বাড়ির বাইরে থাকতে হয়। তার অভিযোগ, তার অনুপস্থিতিতে স্ত্রী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। আর এজন্যই স্ত্রীকে নৃশংসভাবে হত্যা করে সে। ওসি আরও জানান, শুক্রবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাবলু মিয়া থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

চট্টগ্রামে বন্ধুরা পিটিয়ে মেরেছে বন্ধুকে : গত বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রাম নগরীর দক্ষিণ কাট্টলী এলাকায় ছিনতাই নিয়ে কথাকাটাকাটির জেরে মোবারক হোসেন (২০) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার সহযোগীরা। পাহাড়তলী থানার ওসি মঈনুর রহমান জানান, এ ঘটনায় জড়িত দুই কিশোরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলো রুবেল (১৮) ও হৃদয় (১৭)। পুলিশ জানায়, নিহত মোবারক ও জড়িত খুনিরা সবাই একই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য। তারা নগরীর বিভিন্ন এলাকায় চুরি-ছিনতাইসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কাজে জড়িত।

গোপালগঞ্জে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা : গতকাল শুক্রবার গোপালগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে জসিম শেখ (৩০) নামে এক যুবককে পানিতে চুবিয়ে, পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকেরা। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার শশাবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জসিম শেখ ওই গ্রামের আজিজ শেখের ছেলে। গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম জানান, গত ঈদের নামাজ শেষে ওই গ্রামের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে জসিমসহ পাঁচজন আহত হয়। ওই ঘটনায় জসিম একটি মামলা করে। মামলার আসামিরা সম্প্রতি জেল থেকে জামিনে বেরিয়ে শুক্রবার এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটায়।

শিশুর মাথা কেটে নিয়ে ঘোরাফেরা : গত বৃহস্পতিবার নেত্রকোনা শহরের পূর্ব কাটলি এলাকার রঈছ উদ্দিনের ছেলে সজীবের (৭) বিচ্ছিন্ন মৃতদেহ প্রতিবেশী মাদকাসক্ত যুবক রবিনের (২৮) কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে এ ঘটনায় একই এলাকার বাসিন্দা এখলাছের ছেলে রবিনকে গণপিটুনি দিয়ে মেরে ফেলা হয়। এর কিছুক্ষণ পর পূর্ব কাটলি এলাকার কায়কোবাদ নামে এক ব্যক্তির নির্মাণাধীন ভবনের তৃতীয় তলা থেকে শিশু সজীবের মস্তক বিচ্ছিন্ন দেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

হত্যা মামলার সাক্ষীকে কুপিয়ে হত্যা : ১৩ জুন সকালের দিকে নাটোরের গুরুদাসপুরে একটি হত্যা মামলার হাজিরা দিতে আদালতে যাওয়ার পথে জালাল মÐল (৬০) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এতে তার বাম হাত কেটে নেওয়া হয় এবং ডান হাত ও বাম পা ভেঙে দিয়ে পালিয়ে যায় প্রতিপক্ষের লোকজন। ঘটনাস্থল থেকে আহত জালালকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তার মৃত্যু হয়। নিহত জালাল উপজেলার বিয়াঘাট ইউনিয়নের যোগেন্দ্রনগর গ্রামের মৃত আনন্দ মন্ডেলের ছেলে।

প্রকাশ্যে তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা : গত ১০ জুলাই কুমিল্লার দেবীদ্বারে উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামে দিনেদুপুরে মা-ছেলেসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ঘাতক মোখলেসুর রহমান (৩৫) নামে এক যুবককে স্থানীয়রা ধরে গণপিটুনি দিলে তার মৃত্যু হয়। প্রশাসন জানিয়েছে, তার হয়তো মানসিক সমস্যা ছিল।

আদালতের খাসকামরায় কুপিয়ে হত্যা : ১৫ জুলাই একই জেলার আদালতের এজলাসে বিচারকের সামনেই ছুরিকাঘাত করে ফারুক (২৮) নামে এক যুবককে হত্যা করা হয়। নিহত মো. ফারুক কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার অহিদ উল্লাহর ছেলে এবং ঘাতক হাসান জেলার লাকসাম উপজেলার ভোজপুর গ্রামের শহীদুল্লাহর ছেলে। ঘটনাটি সেদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তৃতীয় আদালতের বিচারক ফাতেমা ফেরদৌসের আদালতে ঘটে।

নারীর ছয় টুকরো লাশ উদ্ধার : রাজধানীর অদূরে সাভারের আমিনবাজার স্যানিটারি ল্যান্ডফিলের ময়লার স্ত‚প থেকে বস্তাবন্দি ছয় টুকরো অজ্ঞাতপরিচয় এক নারীর (২৫) মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ময়লার ওই স্তূপে বস্তাবন্দি অজ্ঞাতপরিচয় ২৫ বছর বয়সি এক নারীর ছয় টুকরো মৃতদেহ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে পুলিশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

আস/এসআইসু

Facebook Comments