নয়ন বন্ডের ‘নিহত’ হওয়া নিয়ে মান্নার প্রশ্ন

299

আলোকিত সকাল ডেস্ক

বরগুনায় চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ডের পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তার দাবি, নয়নকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। অপরাধ ধামাচাপা দিতে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত মানববন্ধনে এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে আগামী রবিবার বাম দলের ডাকা হরতালের সমর্থনে সবাইকে রাস্তায় নামার আহ্বান জানান নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক।

গত বুধবার সকালে বরগুনা সরকারি কলেজ রোডে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে গুরুতর জখম করে রিফাত শরীফকে। স্ত্রী আয়েশা আক্তার মিন্নি হামলাকারী নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজীর সঙ্গে লড়াই করেও তাদের হাত থেকে বাঁচাতে পারেনি স্বামীকে।

ওই ঘটনার ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে দেশজুড়ে প্রতিবাদ-সমালোচনার ঝড় ওঠে। খুনিদের গ্রেপ্তারে নড়েচড়ে বসে পুলিশ। পরে নয়জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকেন মূল আসামি নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী এবং রিশান ফরাজী। তাদের মধ্যে প্রধান অভিযুক্ত নয়ন বন্ড মঙ্গলবার সকালে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন বলে দাবি করে বরগুনা জেলা পুলিশ।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মান্না বলেন, ‘বরগুনায় রিফাতের হত্যাকারী নয়ন বন্ডকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। তারা বলছে নদীর মধ্যে গোলাগুলিতে নয়ন মারা গেছে। কিন্তু আমি তিন দিন আগে পত্রিকায় দেখেছি, হিলি সীমান্ত পার হওয়ার সময় সে (নয়ন বন্ড) আটক হয়েছে। জানতে চাই, সত্য কী? কেন তাকে গুলি করে মারা হলো? কোন অন্যায়কে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য এত বড় বর্বর কাণ্ড ঘটানো হলো, তা আমরা জানতে চাই? যদি সরকার মনে করে তারা যা ইচ্ছা তাই করে পার পাবে, সেটা হবে না।’

মান্না বলেন, ‘গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিরুদ্ধে এই মানববন্ধনের মাধ্যমে আমরা আমাদের আন্দোলন শুরু করলাম। আমাদের সহযোগী রাজনৈতিক বন্ধুরা বাম দল, তারা এই অন্যায়ের প্রতিবাদে আগামী রবিবার হরতাল ডেকেছে। আমরা তাদের এই হরতালকে সমর্থন ঘোষণা করছি। আমরা মনে করি, তাদের এই হরতাল আহ্বান যৌক্তিক। জাতীয়ভাবে সবার এই হরতালে অংশগ্রহণ করা উচিত।’

তিনি বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং তার শরিক দলগুলো গ্যাসের দাম বাড়ানোর এই অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছে। আমি তাদের কাছে উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি, জনগণের ওপর সরকার যেভাবে নির্যাতন চালাচ্ছে, তার বিরুদ্ধে ঘরের মধ্যে নয়, আসুন আমরা রাজপথে নামি।’

অন্যান্য রাজনৈতিক দলের উদ্দেশে মান্না বলেন, ‘এই জালিম সরকারের হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আসুন, আমরা ঐক্যবদ্ধ হই। আমরা বাম দলের হরতাল সমর্থন করছি। আমরা সক্রিয়ভাবে সেদিন নামবো। তার সঙ্গে সঙ্গে রাজনৈতিক দলগুলোকে বলি, এটা ডান-বামের প্রশ্ন নয়। এটা গ্যাসের প্রশ্ন, জনগণের প্রশ্ন, মানুষের বাঁচার প্রশ্ন। তাই সবাই মিলে আসুন, ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলি।

আস/এসআইসু

Facebook Comments