পুঠিয়ায় ঘুমন্ত নারীকে কুপিয়ে হত্যা, আটক ১

186

আলোকিত সকাল ডেস্ক

রাজশাহীর পুঠিয়ায় গভীর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় কারিনা বেগম (৪২) নামে এক নারীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুবৃর্ত্তরা। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ এই ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করেছেন।

নিহত কারিনা বেগম উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের লেপপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামের স্ত্রী। গত রোববার (৩০ জুন) রাতে এ ঘটনা ঘটে।

শিলমাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহত কারিনা বেগম গত কয়েক বছর থেকে স্বামী পরিত্যক্তা। বাড়িতে ছোট ছেলেকে নিয়ে সে বসবাস করতো। ঘরের মধ্যে থাকতো ছেলে আর বারান্দার এক কোনায় ছোট কুঠির বানিয়ে সে থাকতো। প্রতিদিনের ন্যায় রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে মা-ছেলে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত আনুমানিক ২টার দিকে কে-বা কাহারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কারিনার নাখ-মুখ বরাবর কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে আশে লোকজন তাকে প্রথমে পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আনেন। পরে তার অবস্থার অবনতি দেখা দিলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে মারা যায়। সোমবার (১ জুলাই) সোমবার ময়না তদন্ত শেষে লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

নিহতের ছেলে খায়রুল ইসলাম বলেন, আমার মা একজন সাদা-সিদে মানুষ ছিল। বাবা আমাদের ছেড়ে চলে যাওয়ার পর থেকে বড়ভাই বাহিরে কাজ করেন এবং তিনি সেখানেই থাকেন। বাড়িতে আমি আর মা মানুষের কাজ-কাম করে কোনো মতে সংসার চালাই। আমার জানামতে আমাদের কোনো শত্রু নেই। আমার মাকে যে হত্যা করে থাকুক আমি চাই আইনের মাধ্যমে তার সঠিক বিচার করা হোক।

এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকিল উদ্দীন আহম্মেদ বলেন, কারিনা বেগম হত্যার ঘটনায় তার ছোট ছেলে খায়রুল ইসলাম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। এ ঘটনায় হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে ওই এলাকার আবুল কাশেম নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments