পুলিশ খোকনের পর এখন মাদক সম্রাট ঈশ্বরগঞ্জের জসিম

1452

বদরুল আমীন, ময়মনসিংহ

ডজনখানি মাদক ও সন্ত্রাসী মামলার আসামী কুখ্যাত মাদক সম্রাট ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ির জসিম উদ্দিন মাদক, হেরোইন ইয়াবাসহ বিভিন্ন নেশাগ্রস্থ দ্রব্য দেদারছে বিক্রি করছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েছে। পুলিশের বন্দুকযুদ্ধে নিহত পুলিশ খোকনের পরেই তার নাম রয়েছে। মাদক এর ভয়াবহতা থেকে দেশকে কিভাবে নিরাপদ রাখা যায় সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ সে বিষয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ঘোষনা দিয়েছে মাদকের ব্যাপারে পুলিশ জিরো টলারেন্স। যেকোন মূল্যে মাদক পরিরোধ করে দেশকে মুক্ত করে গড়বে সোনার বাংলা। ইতিমধ্যে অনেক সফলতা অর্জিত হয়েছে।

তবে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ির ইউনিয় পরিষদের চেয়ারম্যানের ভাই জসিম উদ্দিন আইনকে তোয়াকা না করে চালিয়ে যাচ্ছে মাদক, ইয়াবা, হেরোইন এর ব্যবসা। একদিকে কোমলমতী শিশুরা আগামীদের ভবিষত্য সেটা ধ্বংশ করছে মাদকে জড়িয়ে পরায়। কোমলমতী যুবক স্কুল, কলেজ এবং উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত শিক্ষার্থীরা আসক্ত হয়ে পরেছে জসিমের মাদকে। এলাকাবাসী জানান এখন পরিরোধ না করলে আঠারবাড়ী এলাকায় ঘরে ঘরে মাদক ব্যবসায়ীর জন্ম নেবে। এলাকার বিভিন্ন স্থরের লোকজন মাদকাস্ত হয়ে পরবে।

জসিম উদ্দিনের ব্যপারে প্রায় এক ডজনের ও বেশি থানায় মামলা রয়েছে। মামলা নং ঃ ঈম্বরগঞ্জ থাকার এফ আই আর নং-৮/১৮১ তারিখ ৬জুন ২০১৯, এফ আই আর নং- ৭/১৮০, তারিখ ৬ জুন ২০১৯, এফ আই আর নং- ২৪ তারিখ ১৮ মার্চ ২০১৮, এফ আই আর নং- ১৩ তারিখ ১৫ জুলাই ২০০৭, জি আর নং-১৫৬, তারিখ ১৫ জুলাই ২০১৭, এফ আই আর নং- ০৫ তারিখ ০৬ মে ২০০৬, জি আর নং- ৮৫ তারিখ ০৬ মে ২০১৬, এফ আই আর নং- ০৬ তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারী ২০০৫, জি আর নং- ৩৮ তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারী ২০০৫। তবে বেশি ভাগ মামলাই কোট গ্রেফতারি পরোআনা জারি করেছে। গ্রেফতারী পরোয়ানা নিয়ে মাদকের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে তার সহযোগী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে।

নাম প্রকাশে অনইচ্ছুক নিরিহ লোকজন বলেন ইউপি চেয়াম্যান আলমগীরের ভাই জসিম উদ্দিন হওয়ার সুবাদে শুধু মাদক দ্রব্যের ব্যবসায় নয় বাজারের নিরিহ ব্যবসায়দেরকে বিভিন্ন সময় দোকানে গিয়ে তার দলবল সহ চাদা আদায় করে। তার নাম কেউ মুখ খুলে বলতে চায়না। তার নামের উপর রয়েছে এলাকায় আতংক। টহল পুলিশের আপ্যায়ন নাকি তার উপর ন্যস্ত। মাঝে মধ্যে তিনি এলাকায় আড়াল থাকলে আবার হঠাৎ করে তার সহযোগী দের নিয়ে এলাকায় অবস্থান করে। জসিমের কারণে মাদকের সেবনে যুব সমাজ নষ্ট হচ্ছে। যেখানে তরুণ যুব শক্তি দেশের প্রাণ। নেশার ছোবলে সেই মেরুদন্ড আজ ধ্বংশের ধার প্রান্তে। দাবানলের মতো এই মাদক নেশা ছড়িয়ে পড়েছে আঠারোবাড়ী বাজার সহ বিভিন্ন গ্রাম ও আশপাশের এলাকায়। পলির নেশার ছোবলে অগনীত তরুণ মৃত্যুর কোলে ডলে পরেছে। এর আগে এই এলাকার মাদক সম্রাট ছিল পুলিশ খোকন। পুলিশের সাথে বন্ধুক যুদ্ধে সে নিহত হয়। তার বিক্রিত নেশাগ্রস্থ মাদক গাজা, আফিম, হেরোইন, ইয়াবা উল্লেখযোগ। প্রশাসনকে বিশেষ ভাবে মাদক প্রতিরোধ কার্যক্রম কার্য ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবী এলাকাবাসী।

আস/এসআইসু

Facebook Comments