বদলের হওয়া লাগছে কোচিং স্টাফে

212

আলোকিত সকাল ডেস্ক

বিশ্বকাপে প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে টিম বাংলাদেশ। সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন নিয়ে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমানো টাইগাররা রোববার ঘরে ফিরেছে দশ দলের আসরে অষ্টম হয়ে। এমন হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পর নড়েচড়ে বসেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। টাইগারদের কোচিং স্টাফে বড়সড় পরিবর্তন আনার কথাই ভাবছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

মাশরাফি বিন মর্তুজার দলের বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হয়ে যাওয়ার পর লন্ডনের এক হোটেলে আলোচনায় বসেছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ বেশ কয়েকজন বোর্ড পরিচালক। সেই আলোচনায় বেশকিছু বিষয়ে মতানৈক্যে পৌঁছেছেন তারা। তার মধ্যে অন্যতম কোচিং স্টাফে বদল আনা। এ বিষয়ে চ‚ড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহের শেষে, ঢাকায় আরেকটি সভার পর।

পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের সঙ্গে এই বিশ^কাপ পর্যন্তই চুক্তি ছিল বিসিবির। ক্যারিবীয় এই কিংবদন্তির সঙ্গে নতুন করে আর চুক্তিতে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে লন্ডনের সভায়। বিষয়টা জেনে গেছেন ওয়ালশও। সে কারণেই বাংলাদেশ দলের সঙ্গে ফেরেননি তিনি, লন্ডনেই মাশরাফি-রুবেল-সাইফউদ্দিন-মোস্তাফিজদের কাছ থেকে বিদায় নিয়েছেন। জানা গেছে, আপাতত এই জ্যামাইকান লন্ডনেই থাকবেন, মাসখানেক পর ফিরবেন জন্মভূমিতে।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি মাসেই শ্রীলঙ্কা সফরে যাবে বাংলাদেশ। ওয়ালশকে বিদায় দেওয়ার সিদ্ধান্ত হলেও ওই সফরে পেস বোলিং কোচ ছাড়া যাচ্ছে না টাইগাররা। শোনা যাচ্ছে দায়িত্বটা বর্তাচ্ছে চম্পাকা রামানায়েকের কাঁধে। বিসিবি একাডেমি, ডেভেলপমেন্ট এবং ‘এ’ দলের বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করে আসছেন এই শ্রীলঙ্কান। তাই বাংলাদেশের ক্রিকেটে বেশ পরিচিত মুখ তিনি। বিভব সিংও অপরিচিত কেউ নন। একটা সময় জাতীয় দলের ফিজিও ছিলেন তিনি। ব্যাটে-বলে মিলে গেলে শ্রীলঙ্কা সফরেই তাকে আবার বাংলাদেশের কোচিং স্টাফে দেখা যাবে।

তাহলে থিহান চন্দ্রমোহনের কী হবে? ওয়ালশের মতো তার চুক্তির মেয়াদও বিশ^কাপেই শেষ হয়ে গেছে এবং তার সঙ্গেও চুক্তি নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন বিসিবি কর্তারা। সাম্প্রতিক সময়ে তার কাজের দক্ষতা একাধিকবার প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। ক্রিকেটাররাও নাকি এই ফিজিওর ওপর আর আস্থা রাখতে পারছেন না। সব দিক বিবেচনায় তাকে নিয়ে আর নতুন করে ভাবতে নারাজ বিসিবি।

ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি আর ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের সঙ্গেও বিসিবির চুক্তি ছিল বিশ^কাপ পর্যন্ত। তবে এই দুজনের বিষয়ে ইতিবাচক দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। ম্যাকেঞ্জির কাজে দারুণ সন্তুষ্ট সবাই। এরই প্রেক্ষিতে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই ব্যাটসম্যানকে চুক্তি নবায়নের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। বিসিবির সেই প্রস্তাবে নাকি ইতিবাচক সাড়াও দিয়েছেন তিনি। তবে দলের সঙ্গে তার শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার বিষয়টি এখনও নিশ্চিত নয়।

ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকেরও চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর কথা ভাবা হচ্ছে। যদিও এই বিশ^কাপে দলের ফিল্ডিং ছিল বাজে। গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে ক্যাচ পড়েছে বেশ কয়েকটি, গ্রাউন্ড ফিল্ডিংও ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। এরপরও তাকে নিয়ে ইতিবাচক বিসিবি। ফিল্ডিংয়ে উন্নতি ঘটানোর যে প্রচেষ্টা তিনি দেখিয়েছেন, তাতে সন্তুষ্ট সবাই। স্পিন বোলিং কোচ সুনীল যোশির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি সভায়। অন্যদিকে বিশ^কাপ চলাকালেই পারফরম্যান্স অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরের চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে দুই বছর।

২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপ পর্যন্ত চুক্তিবদ্ধ প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের সামর্থ্য নিয়েও সন্দিহান বিসিবি। শীর্ষ পর্যায়ে কোচ হওয়ার যোগ্যতাই নাকি তার নেই! কিন্তু চাইলেই তো আর যখন তখন যুতসই কোচ পাওয়া যায় না। তাই লন্ডনের সভায় বিসিবির শীর্ষ কর্তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, যে পর্যন্ত পছন্দসই বিকল্প না পাওয়া যাচ্ছে সে পর্যন্ত রোডসই দায়িত্ব চালিয়ে যাবেন। অর্থাৎ আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে তিনি থাকছেন টাইগারদের সঙ্গে। এই সময়ে তার কাজ আরও ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করবে বিসিবি।

সভায় আলোচনা হয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার অবসর সংক্রান্ত বিষয়েও। টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক বিশ^কাপ চলাকালেই জানিয়েছেন, আপাতত অবসরে যাওয়ার ভাবনা তার নেই। তবে বোর্ড চাইলে ভাববেন। মাশরাফি ভক্তদের জন্য সুখবর, বিসিবিও চাইছে না এই সময়ে নড়াইল এক্সপ্রেস অবসরে যাক। মাশরাফিকে আপাতত অবসর নিয়ে না ভাবার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ শ্রীলঙ্কা সফরে তিনটি ওয়ানডেতে টিম বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন তিনিই।

তাহলে কি শ্রীলঙ্কাতেই শেষ হচ্ছে মাশরাফির আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার? মোটেও না। মাশরাফির শেষটা হবে দেশের মাটিতে। ঘরের মাঠে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ বা সিরিজ আয়োজন করে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া অধিনায়ককে বিদায় দিতে চায় বিসিবি। সেখানেও বোর্ডের ওপর মহলের অলিখিত শর্ত আছেÑ ঘরের মাঠে বাংলাদেশ জিতবে, এমন কোনো সিরিজ শেষেই বিদায় দেওয়া হবে মাশরাফিকে।

এদিকে শ্রীলঙ্কা সফরে কিছু খেলোয়াড় বিশ্রাম পেতে পারেন। খেলোয়াড়দের সেই তালিকায় আছেন বিশ^কাপ মাতানো সাকিব আল হাসান। লাগাতার খেলার মধ্যে থাকায় একটা বিরতি চেয়েছেন তিনি। এ ছাড়া বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারতে ছুটি নিতে পারেন লিটন দাস।

আস/এসআইসু

Facebook Comments