মাসুদ রানা’ নিয়ে নিন্দার ঝড়, মুখ খুললেন ফারিয়া

63

কাজী আনোয়ার হোসেনের লেখা বাংলাদেশি সাহিত্যের জনপ্রিয় গোয়েন্দা চরিত্র ‘মাসুদ রানা’ নিয়ে সিনেমা নির্মাণ হবে এ কথা এখন আর কারো অজানা নয়। বিশেষ করে চরিত্রটিকে খোঁজার জন্য যে হাঁক ডেকে রিয়েলিটি শো ‘কে হবেন মাসুদ রানা’ শুরু হয়েছে তা নিয়ে চলছে সমালোচনা, বইছে নিন্দার ঝড়

সমালোচনা বা নিন্দাগুলো শুধু শো’য়ের বিচারকদের ঘিরে। প্রতিযোগীদের সঙ্গে তাদের আচার-ব্যবহার এতটাই ‘জঘন্য’, যা নিয়েই নিন্দা সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকসহ সর্বত্র। দর্শকদের অভিযোগ, বিচারক পরিচালক ইফতেখার আহমেদ ফাহমি, শাফায়েত মনসুর রানা, মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল, অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম ও শবনম ফারিয়া প্রতিনিয়ত ‘অপমান’ করছেন প্রতিযোগীদের।

অবশ্য প্রমাণ ছাড়া দর্শকরা এই নিন্দা তোলেননি। ফেসবুকে বেশ কয়েকটি ভিডিও ক্লিপ ঘুরে বেড়াচ্ছে। যেগুলোতে দেখা যাচ্ছে ফাহমি, শাফায়েত, মম ও ফারিয়া বিভিন্নভাবে অপমান করছেন প্রতিযোগীদের। শুধু তাই নয় প্রতিযোগীদের স্টাইল-ফ্যাশনসহ নানা বিষয়ে কটূক্তি ও তামাশা করেছেন বিচারকরা।

এতসব সমালোচনার মধ্যে গত ২ আগস্ট থেকে চ্যানেল আই’য়ে প্রচার শুরু হওয়া রিয়েলিটি শো কে হবেন মাসুদ রানা প্রসঙ্গে আমাদের সময়অনলাইনকে একটি বার্তা পাঠিয়েছেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া।

advertisement

তিনি বলেন, ‘আমি কয়েকটি পয়েন্টে কথা বলতে চাই। শুরুটা করছি প্রশ্ন দিয়েই। আমি বিশ্বাস করি আমার ভক্ত ও বন্ধুরা অত্যন্ত বুদ্ধিমান ও বিচক্ষণ। আপনাদের কি মনে হয়, ক্যামেরার সামনে থাকা মানুষগুলোর ব্যক্তিগত অভিমত দেওয়ার জায়গা ছিল সেই বিচারকার্য? কিংবা তাদের ব্যক্তিগত ছবি মাসুদ রানা?’

এই প্রশ্নের পর তিনি বলেন, ‘মাসুদ রানা বিগ বাজেটের একটি চলচ্চিত্র। শুরু থেকেই আমরা জেনেছি এটি বিগ বাজেটের একটি চলচ্চিত্র। যার বাজেট ৮৩ কোটি টাকা! যেখানে দুই কোটিতে আমরা একটি ছবি নির্মাণ করি, সেখানে এর বাজেট ৮৩ কোটি! এত টাকার লগ্নির কারণ ডিটেইল কাজ করছে তারা। এই যে বিচারকাজ, গ্রুমিং সবই হচ্ছে বিস্তারিত। এখন আপনার কি মনে হয়, যারা ৮৩ কোটি টাকা বিনিয়োগ করছেন, তারা হুট করেই দু’একজনকে ধরে এনে বিচারকের আসনে বসিয়ে দেবেন? নিশ্চয়ই নয়।’

প্রশ্ন রেখে তিনি আরও বলেন, ‘অনুষ্ঠানে বিচারকরা যা-তা করে চলে যাবেন, আর তারা কোটি কোটি টাকা ঢেলে দেবেন? নিশ্চয়ই নয়! বা এই যে এত টাকার একটি অনুষ্ঠানে এটা কি অনুষ্ঠান প্রযোজক, পরিচালক, কুশলীরা ছাড়া শুধু বিচারকরাই ডিরেকশন দিয়ে, নিজেরা সংলাপ বলে অনুষ্ঠান শেষ করছেন, আপনার কী মনে হয়?‘

শবনম ফারিয়া বলেন, ‘আমি পরিচালক, নির্মাতাদের সম্মান করি। তাদের অনুমতি ছাড়া একটি শব্দও বলতে রাজি নই। ভেবে দেখুন, অডিশনে আশা যুবকদের অপমান করার জন্য আপনারা ক্ষুব্ধ। আর সেটা প্রতিবাদ করতে আপনার কী করছেন। আপনারাও বিচারকদের চরম অপমান করে তার প্রতিবাদ করছেন। পার্থক্যটা কোথায় রাখলেন?’

‘শুধু বলি গত কয়েকদিন ধরে আমার সঙ্গে যা ঘটেছে তা অবর্ণনীয়! ফেসবুকে হুমকি গালি-গালাজসহ আমার নম্বর ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। একজন মেয়ের জন্য এর ফল কতটা ভয়ংকর তা নিশ্চিয়ই আপনারা উপলব্ধি করতে পারবেন’, জানান শবনম ফারিয়া।

ব্যক্তিগত আক্রমণ যদি আমার পাশেরজন বা পরিচিতজন করে, সেটাও কি আমার দায়ভার? প্রশ্ন রেখে তিনি আরও বলেন, ‘এখন আমার বিচার বিশ্লেষণের পুরোটা দেখতে পারেন। আমার প্রশ্নগুলো দেখতে পারেন। মাসুদ রানা কেমন, সেই লুকের কথা উপন্যাসে আছে। লম্বা, গড়ন, লুক-সবই উল্লেখ করা। সুতরাং অনুষ্ঠানের পরিচালকরা যে যে ক্রাইটেরিয়ায় কথা বলতে বলেছেন আমি সেগুলো নিয়ে কথা বলেছি। আমি মাসুদ রানার বৈশিষ্ট্য নিয়ে কথা বলেছি। আমি কাউকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘অন্যরা কীভাবে ভাবেন, জানি না। কিন্তু আমার সামনে যে ছেলেটি অডিশন দিতে এসেছে, তাকে আমি অসম্মান করিনি। প্রথমত ধরেই নিয়েছি, যেহেতু তার স্বপ্ন অভিনয়, সেহেতু সে আমার দর্শক বা ভক্তও হতে পারে (আবার নাও হতে পারে)। বা আমাকে চেনেন। যদি কেউ তাদের মধ্যে আমার ভক্তও হয়ে থাকেন, আমি চাইনি অভিনয় জগতের মানুষ হিসেবে আমার প্রতি তার ক্ষোভ জন্মাক, বা অশ্রদ্ধা জন্মাক।

বিষয়টি আমি এভাবে ভাবি, যারা আমার সামনে এসেছেন, তাদের ভালোবাসার জন্যই আমি হয়তো অভিনেত্রী হয়ে বিচারকের আসনে বসতে পেরেছি। সবার জন্য ভালোবাসা।’

শবনম ফারিয়ার ফেসবুক আইডি বর্তমানে বন্ধ ছিল। তিনি আমাদের সময় অনলাইনকে জানিয়েছেন, ফেসবুক চালু করেই কথাগুলো তিনি পোস্ট করবেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার পল্টন থানায় মেহেদী হাসান ফরহাদ নামে একজনের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন এই অভিনেত্রী। নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন উল্লেখ করে থানায় জিডি করেন তিনি।

Facebook Comments