মোহনপুরে কলেজছাত্রী কে অপহরণের পর উদ্ধার

418

মোহনপুর প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর মোহনপুরে এক কলেজছাত্রীকে অপহরণের পর উদ্ধার করা হয়েছে। কাশেম বাজার (তানোর) থেকে কলেজ ছাত্রীর পরিবার অপহরন কারীর কাছে থেকে উদ্ধার করে। তবে অপহরন কারীরা পালিয়ে যায়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মোহনপুর উপজেলার শ্যামপুর হাট ডিগ্রী কলেজের একাদ্বশ শ্রেনীর ছাত্রী শিউলি আক্তার (১৭)এর সাথে তালন্দ ললিত কলা ডিগ্রী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র আলী হাসান (১৯) এর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। আলী হাসান তালন্দ বাজার (ছাত্রাবাস) থেকে তালন্দ ললিত কলা ডিগ্রী কলেজে দ্বাদশ শ্রেণীতে পড়ালেখা করে।

কলেজছাত্রী শিউলি আক্তার এর বাড়ি মোহনপুর উপজেলার ভীমপাড়া গ্রামে নুরুল ইসলাম এর মেয়ে। আর আলী হাসান নওগাঁ জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার কামারপুর গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে।

শিউলি ও আলী হাসান এর প্রথম পরিচয় হয় শ্যামপুর মেলাই বেড়াতে গিয়ে, পরিচয়ের পর উভয়ের মধ্যে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এক পর্যায়ে কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেন প্রেমিক আলী হাসান।

কলেজছাত্রী বিয়েতে রাজি না হওয়ায় ৭ ই জুলাই রোববার সকাল ৯.৩০ টার সময় শ্যামপুর হাট ডিগ্রী কলেজের সামনে থেকে আলী হাসান (১৯), তার দুই বন্ধু তালন্দ গ্রামের মফিজ উদ্দিন এর ছেলে সুমন (২১), নিয়ামতপুর উপজেলার চকপাড়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে জুয়েল রানা (২০) মিলে ওই কলেজছাত্রীকে অপহরণ করে।

অপহরণের পর ওই দিন তানোর উপজেলার কাশেম বাজার থেকে কলেজ ছাত্রীর পরিবার কলেজছাত্রীকে উদ্ধার করেন। তবে অপহরণ কারিরা পালিয়ে যায়।

কলেজ ছাত্রী শিউলি আক্তার বাদি হয়ে ৮ ই জুলাই সোমবার তিন জনকে আসামি করে থানায় অপহরণের মামলা করেন।

মোহনপুর থানার ইনচার্জ মোস্তাক আহম্মেদ (ওসি) দৈনিক আলোকিত সকাল পত্রিকা কে বলেন, প্রধান আসামি আলী হাসানকে ৮ই জুলাই সমবার রাতে তালন্দ বাজার থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আর বাকি আসামিদের গ্রেফতার চেষ্টা চলছে। তবে যত সম্ভব দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments