রাইডুর অবসরের জন্য দায়ী ধোনি!

324

আলোকিত সকাল ডেস্ক

বলেছিলেন বিশ্বকাপের পরে বোমা ফাটাবেন! কী ধরনের বোমা ফাটাতে পারেন সেটার একটা নমুনাই যেন দিলেন যোগরাজ সিং। যুবরাজ সিংয়ের বাবার দাবী, মহেন্দ্র সিং ধোনির কারণেই অধিনায়কত্ব পাওয়া হয়নি তার ছেলের। যোগরাজ এখানেই থামেননি। অভিমানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সদ্য অবসরে যাওয়া আম্বাতি রাইডুর অকাল বিদায় বলার দায়টাও চাপিয়ে দিয়েছেন ভারতকে দুই বিশ্বকাপ জেতানো সাবেক অধিনায়কের কাঁধে!

২০০৭ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ঠিক আগমুহূর্তে ভারতের টি-টুয়েন্টি দলের নেতৃত্ব পান ধোনি। সিনিয়র ক্রিকেটাররা ওই আসরে খেলতে না চাওয়ায় ধোনিকে দেয়া হয় অধিনায়কত্ব। নেতৃত্ব পেয়েই ভারতকে টি-টুয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন বানান ধোনি। সাফল্য পাওয়ায় পর ওয়ানডে ও টেস্ট দলের অধিনায়কও বানানো হয় তাকে। তার হাত ধরেই ২০১১ সালে দ্বিতীয়বারের মতো ওয়ানডেতে বিশ্বসেরা হয় ভারত।

এতসব সাফল্য থাকার পরও যোগরাজের চোখে ধোনি এমন একজন ‘কালপ্রিট’, যিনি ব্যক্তি স্বার্থের জন্য ছুঁড়ে ফেলেছেন অনেক প্রতিভাবান ক্রিকেটারকে। এক সাক্ষাৎকারে সাবেক এ ক্রিকেটারের ইঙ্গিত যুবরাজকে এড়িয়ে কুটচালে নেতৃত্ব নিয়েছেন ধোনি, ‘যুবরাজের নেতৃত্ব পাওয়াটা ছিল তার অধিকার। কিন্তু এমন একজনকে শেষ পর্যন্ত নেতৃত্ব দেয়া হল, যে কিনা দলে এসেছে অনেক পরে।’

‘ভারতের প্রত্যেক ক্রিকেটারই আমার সন্তান যুবরাজের মতো। প্রত্যেক খেলাতেই একজন করে ভালো ও খারাপ চরিত্র থাকে। আমি আশা করি ভারত এবার বিশ্বকাপটা জিতবে।’

বিশ্বকাপের দলে থাকতে না পেরে কদিন আগে অভিমানে অবসর নিয়েছেন রাইডু। সেখানেও ষড়যন্ত্র দেখছেন যোগরাজ। যথারীতি দোষ দিয়েছেন ধোনিকেই, ‘রাইডু, কোনো দ্বিধা ছাড়াই ফিরে আসো। অবসর থেকে ফিরে দেখিয়ে দাও তুমি কতটা যোগ্য। ধোনির মতো লোকজন সারাজীবন খেলবে না। তার মতো নোংরা খেলোয়াড়কে সারাজীবন কেউ মনেও রাখে না!’

আস/এসআইসু

Facebook Comments