রামগঞ্জে অবাধে বিক্রি হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার

346

আলোকিত সকাল ডেস্ক

বিভিন্ন হাট-বাজার গুলোতে অবাধে বিক্রি হচ্ছে মেয়াদ উত্তীর্নসহ তরলকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস বা এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডার। হাট-বাজারের মুদি, ফোন-ফ্যাক্স, ষ্টেশনারী, রড সিমেন্ট, সার-কিটনাশক, তেল, লাইব্রেরি, কম্পিউটার দোকানে গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি ক্ষেত্রে কোন বিস্ফোরক অধিদপ্তরের বৈধ কাগজ পত্রাদি কিংবা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রাংশ নেই। কর্তৃপক্ষের তদারকি না থাকায় মেয়াদউত্তীর্ন সিলিন্ডার বিস্ফোরণে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, রামগঞ্জ উপজেলায় বিস্ফোরক অধিদপ্তর থেকে গ্যাস বিক্রির জন্য মেসার্স তানভির ট্রেডার্স, মেসার্স নওশাত এন্টারপ্রাইজ, মেসার্স তাহের আহম্মদ,মেসার্স রূপা ট্রেডাস ও ফারুক স্টোর নামের ৫টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে ৪০টি পর্যন্ত গ্যাস সিলিন্ডার মজুদ ও বিক্রি করার অনুমতি থাকলেও প্রতিষ্ঠানগুলো লাইসেন্সের শর্ত ভঙ্গ করে হাজার হাজার সিলিন্ডার পাইকারী ও খুচরা বিক্রি করে আসছে।

এছাড়াও ১টি পৌরসভা ও ১০টি ইউপির ৪০টি হাট বাজারের বেশীরভাগ দোকানে ২০ থেকে শতাধিক গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার মজুদ করে দেদারছে এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন ওই অসাধু ব্যবসায়ীরা।

আইনানুযায়ী অগ্নি দুর্ঘটনার প্রতিরোধে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে খুচরা বিক্রির জন্য ১০টি গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার রাখতে পারবে। ১০টির বেশী গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার রাখতে হলে বিস্ফোরক অধিদপ্তরের অনুমতি বাধ্যতামূলক।

মধ্য মাছিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমির হোসেন বলেন, কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ও অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রাংশ না রেখে গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি করায় প্রতিনিয়ত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে।

পানপাড়া বাজারে বিল্লাল স্টোরের মালিক বিল্লাল হোসেন, তানজিদ ট্রেডার্সের মালিক হারুনুর রশিদ, সাধি ট্রেডার্সের মালিক হুমায়ুন কবির, তানজিদ গ্যাস এন্ড চুলা সার্ভিসিং এর মালিক মামুন হোসেন বলেন, রায়পুর উপজেলার বন্ধন ট্রেডার্স ও রামগঞ্জ উপজেলার মের্সাস তাহের আহম্মদের ম্যানেজার রিপন হোসেন এর নিজেস্ব গাড়ীতে করে আমাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সিলিন্ডার দিয়ে যায়। তারা সারা রামগঞ্জ উপজেলার হাট-বাজার গুলোর ন্যায় আমাদের দিয়ে যাওয়ার কারনেই আমরা বিক্রি করছি। গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি করতে কোন লাইন্সেন্স প্রয়োজন কি না তা আমাদের জানা নেই।

মেসার্স তাহের আহমেদ এর পরিচালক মোঃ রিপন হোসেন বলেন, কিছু নতুন কোম্পানীর সিলিন্ডার বাজারজাত করছে আর ওই সকল কোম্পানীর ডিলাররা গাড়ীতে করে হাট-বাজারে গ্যাস সিলিন্ডার দিয়ে আসছে। প্রতিযোগীতার বাজারে ব্যবসা ধরে রাখতে আমরাও একই পথে হাটতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রিজাউল করিম জানান, অবৈধ ভাবে হাট-বাজার গুলোতে গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি করীদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments