লড়ে যাওয়ার জন্য নিউজিল্যান্ডকে ধন্যবাদ: উইলিয়ামসন

319

আলোকিত সকাল ডেস্ক

টানা দু্ইবার বিশ্বকাপের ফাইনাল মঞ্চে এসেও স্বপ্ন পূরণ হলো না নিউজিল্যান্ডের। ২০১৯ বিশ্বকাপে লর্ডসে লোমহর্ষক ফাইনালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের হাতে শিরোপা তুলে দিয়েছে কিউইরা। অবশ্য পরাজিত হয়ে নয়। মূল ম্যাচ ও সুপার ওভারে টাই করেও বাউন্ডারিতে পিছিয়ে থাকায় বিশ্বকাপ জেতা হলো না নিউজিল্যান্ডের।

কিন্তু কিউই পাখিরা যে ম্যাচ উপহার দিয়েছে তা জ্বলজ্বল করবে ক্রিকেট ইতিহাসে। আর পুরো টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলে ট্রাজিক হিরো হয়ে রইলেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। নাটকীয় ম্যাচে শিরোপা না জিতলেও ইংল্যান্ডকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তিনি।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ইংলিশদের অভিনন্দন জানিয়ে উইলিয়ামসন বলেন, ‘অনবদ্য এই অভিযানের জন্য ইংল্যান্ডকে অভিনন্দন।’

টসে জিতে ব্যাটিং নিয়ে ইংল্যান্ডকে ২৪১ রানের টার্গেট দেয় নিউজিল্যান্ড। অবশ্য স্কোরবোর্ডে আরও ১০ থেকে ২০ রান যোগ করতে পারলে জয়ের সম্ভবনা নিয়ে আশাবাদী ছিলেন উইলিয়ামসন। সেই ইচ্ছেটা জানালেন তিনি ম্যাচ শেষে, ‘আমরা টসের ব্যাপারে চিন্তায় ছিলাম। পিচ শুকনো ছিল। আমাদের আরও ১০-২০ রান বেশি হলে ভাল হতো। তবে বিশ্বকাপ ফাইনালে এই রানও প্রতিযোগিতামূলক ছিল।’

এই রান নিয়েও কিউই বোলাররা দুর্দান্ত লড়াই করেছে। বোলারদের নৈপুণ্যে শেষ বল পযর্ন্ত লড়াই করেছে নিউজিল্যান্ড। তার জন্য বোলারদের ধন্যবাদ জানালেন উইলিয়ামসন। ম্যাচটিকে নিজেও মেনে নিলেন সেরা ম্যাচ হিসেবে, ‘এমন কঠিন পিচে বোলাররা ব্যাটসম্যানদের অত্যন্ত চাপে রেখেছিল। দু’দলই ম্যাচের শেষ বল পযর্ন্ত লড়াই দেখিয়েছে। সুপার ওভারের শেষ বলেও লড়াই চলেছে। পুরো টুর্নামেন্টের সেরা ম্যাচ ছিল এটি।’

তবে শেষ ওভারে ইংল্যান্ড অতিরিক্ত চার রান পেয়ে যাওয়ার ক্ষোভ দেখিয়েছেন উইলিয়ামসন। ট্রেন্ট বোল্টের করা শেষ ওভারের চতুর্থ বলে দুই রান নেন বেন স্টোকস। কিন্তু রান নেওয়ার সময় মার্টিন গাপটিলের থ্রো করা বল আকস্মিকভাবে স্টোকসের ব্যাটে লেগে বল সীমানা পার করে। আম্পায়ার চার দেন। ওই বলে রান আসে ছয়। যা ম্যাচের ব্যবধান গড়ে দিয়েছিল বলে মনে করেন উইলিয়ামসন, ‘এটা লজ্জাজনক যে স্টোকসের ব্যাটে বলটি আঘাত করেছে। কিন্তু আমি আশা করেছিলাম ঐ সময় তেমন কিছু না ঘটার। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত তা ঘটেছে। অবশ্য এটি খেলারই অংশ যা আমরা খেলেছি।’

সুপার ওভার বিষয়ে উইলিয়ামসন বলেন, ‘নিশাম এবং গাপটিল উভয়ে বলে জোরালোভাবে হিট করেছিল। বাঁ-হাতি ও ডানহাতির সমন্বয়টি সুপার ওভারের জন্য সহায়ক ছিল। তবে বিশেষভাবে অাজকের ম্যাচে আমরা যেভাবে লড়াই করেছি তা ছোট ছোট মার্জিন থেকে সমালোচনা করা অশোভন।’

তবে শেষ পযর্ন্ত লড়ে যাওয়ার জন্য সতীর্থদের ধন্যবাদ জানালেন উইলিয়ামসন, ‘টুর্নামেন্টের শেষ পযর্ন্ত লড়ে যাওয়ার জন্য নিউজিল্যান্ড দলকে ধন্যবাদ।’

আস/এসআইসু

Facebook Comments