চৌহালীতে গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন

223

মোঃইমরুল হাসান শিকদার চৌহালী(সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নে চলতি ২০১৮-২০১৯অর্থ বছরে মানবীক সহায়তা কর্মসুচির আওতায় গরীব দুস্থ অসহায় অতিদরিদ্র পরিবারের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসুচি (ইজিপিপি) ২৭টি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সঠিক ও সুন্দও ভাবে সম্পন্ন হয়েছে’।

গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নে ৩০টি প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে গ্রামীন কাচা রাস্তা নির্মান২৪টি, মাটি ভরাট১টি,বাড়ীর ভিটে উচু করণ২টি। ২০১৮-২০১৯অর্থ বছরের ১ম পর্যায়ের প্রকল্প কাজে মোট বরাদ্দ ১কোটি ৫৪লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রণালয়ের অধীনে গরীব দুস্থ অসহায় অতিদরিদ্র পরিবারের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসুচি (ইজিপিপি) এর আওতায় চলতি অর্থ বছরে প্রথম পর্যায়ের এ কাজে উপকারভোগ দেও সংখ্যা ১হাজার ৯৩২জন নারী-পুরুষ অংশ গ্রহন করে। হতদরিদ্র নুরমোহাম্মদ,আওয়াল, কাশেম, নজরুল,মালেকা,কুলছুম, রহিমা,কবরী জানান, এ কাজ পেয়ে তারা সংসারের অবাব অনটন মচনে এখন সহায়ক ভুমিকা রাখছেন।

এ প্রকল্প তাদের পরিবারের অভাব দুর হয়েছে। তাই তারা এ কাজ পেয়ে অত্যন্ত খুশি বলে জানান। গত ১১ মে ২০১৯ থেকে ৪০দিন প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়া এ কাজ ৩০জুন ২০১৯তারিখে শেষ হলে চৌহালী উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের মোট ২৭টি গ্রামীন অবকাঠামোর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসন দাবি করেন। ১টি ইউনিয়নে (খাষকাউলিয়া) এ প্রকল্পের কাজ নেই। এছাড়াও ব্রীজ ০৪টি,০৮টি ব্রীজ ট্যান্ডার প্রক্রিয়াধীন,এইচ,বি রাস্তা ১.৫কিঃমিঃ ০২টি প্রকল্প। গত ২০ জুন উপজেলার বিভিন্ন ইউপির কয়েকটি প্রকল্প পরিদর্শন করেন জেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা (ডিআরআরও)মোঃ আব্দুর রহিম,চৌহালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাঃ আবু তাহির,প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার মোহাম্মদ মজনু মিয়াসহ স্থানীয় চেয়ারম্যান বৃন্দরা।

চৌহালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাঃ আবু তাহির,উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মজনু মিয়া ৬টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বারদের নিয়ে প্রতিদিন একাজের অগ্রগতি তদারকি করেন। ফলে উপজেলা জুড়ে উন্নয়ন প্রকল্প কাজে সাফল্য,এতে গ্রামের উন্নয়ন আরেক ধাপ এগিয়ে যায়।

ইউএনও মুহাঃ আবু তাহির জানান, এবার কঠোর ভালভাবে মনিটরিং করার ফলে শতভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চলতি কাজের কোন অনিয়ম দুর্ণীতি হয়নি,কাজের মানও ভাল। তবে ১টি ইউনিয়নে কোন কাজ না হওয়ায় বরাদ্দের অর্থ ফেরৎ দেয়া হয়েছে। পিআইও মোঃ মজনু মিয়া জানান, ৪০দিন প্রকল্পের কোথাও কোন কাজের মান নিম্নমানের হলে তা পুনঃরায় সে কাজ আদায় করে নেয়া হয়েছে।এখানে ৭০%টাকা বেইতা ও ৩০%টাকা অবেইতো,৪০দিন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হয়নি, অসম্পতার কারণে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ কাজের অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর সংকেত দেয়া ছিল বলে কোথাও কোন দুর্নীতি অনিয়মের সংবাদ পাওয়া যায়নি বলে তারা জানান। আমরা সর্বক্ষন। ভালভাবে কাজের মনিটরিং করেছি যার ফলে কাজের মান উন্নয়নের বাস্তবচিত্র সরেজমিন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments